WTO

World Trade Organization
আন্তর্জাতিক বাণিজ্য নিয়ন্ত্রনের উদ্দেশ্যে ১৯৯৫ সালের ১ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠিত হয় WTO- World Trade Organization. যা GATT(General Agreement on Tariffs and Trade) এর স্থলাভিষিক্ত হয়।
এর সদর দপ্তর সুজারল্যান্ডের জেনেভায়।
সংস্থাটির বর্তমান প্রধান- রবার্তো আজেভিদো।
সংস্থাটির মন্ত্রী পর্যায়ের একাদশতম সম্মেলন হবে আর্জেন্টিনার বুয়েন্স আয়ার্সে, ১০-১৩ ডিসেম্বর।

বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ১৬৪ । এটি একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন বিভিন্ন দেশের মধ্যে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে নিয়ম-কানুন প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করে থাকে। WTO প্রণীত নীতিসমূহই আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ভিত্তি। বাংলাদেশ এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।
এর প্রধান কার্যাবলীঃ

  • আন্তঃদেশীয় বাণিজ্য চুক্তিতে সহায়তা
  • বাণিজ্য আলোচনার ফোরাম হিসাবে কাজ করা
  • জাতীয় বাণিজ্য নীতির পর্যালোচনা
  • ব্যবহারিক প্রশিক্ষণ ও সহায়তা প্রদান
  • বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের(IMF, IBRD) নীতির সাথে সমন্বয় সাধন।
  • বিভিন্ন পক্ষের মাঝে বিদ্যমান বিবাদ নিয়ে আলোচনা করে সমাধানে পৌঁছানো

এটি একটি নিয়মতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান। বিধিবদ্ধ বহুপাক্ষিক বাণিজ্য সিস্টেম তৈরিতে এটি তিনটি চুক্তি অনুসরণ করে

GATT – 1994 (General Agreement on Tariffs and Trade) – for trade in goods
GATS (General Agreement on Trade in Services) – for trade in services
TRIPs (Agreement on Trade-Related Aspects of Intellectual Property Rights

এই তিনটি ছাড়াও কিছু চুক্তি আছে যেমন কৃষি, SPS, TBT, ইত্যাদি।

WTO এর মূল নীতিঃ
(i) সকল ক্ষেত্রে সব দেশকে সমান সুযোগ দেওয়া , কোন বৈষম্য না করা।
(ii) আমদানি পণ্য ও দেশীয় পণ্যকে সমান বিবেচনা করা
(iii) সকল কাজের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা।
(iv) সদস্য রাষ্ট্রকে বাণিজ্যের উপর যৌক্তিক বিধিনিষেধ প্রদান ক্ষমতা অর্পণ।

সমালোচনাঃ

  1. অনেক মনে করেন, WTO পক্ষপাত দুষ্ট, গরিব দেশ- যাদের Negotiation Power কম, তাদের প্রতি বৈষম্য করা হয়। এবং ধনী দেশের প্রতি পক্ষপাতিত্ব করে।
  2. ধনীদেশগুলো গরীব দেশের পণ্যে শুল্ক ও কর আরোপ করে, বা তাদের রপ্তানিতে বাধার সৃষ্টি করে। যেমন পোশাকের ক্ষেত্রে।
  3. যদিও এটি মুক্ত বা অবাধ বাণিজ্যের কথা প্রচার করে কিন্তু কার্যক্ষত্রে তা দৃশ্যমান নয়।
  4. অনেক উন্নয়নশীল দেশ আছে যারা দোহা রাউন্ডের শর্ত পূরণ করতে পারে না।
  5. TRIPs এর কারনে নিজ দেশে উৎপাদিত বিদেশি পণ্য, তারা ব্যবহার করতে পারে না।
  6. অনেক সমালোচক মনে করেন, WTO শ্রমিক ও পরিবেশের কথা চিন্তা না করে নীতি প্রণয়ন করে।
  7. বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণে ধনী দেশের প্রাধান্য।

World Tourism Organization
WTO বা UNWTO(The United Nations World Tourism Organization) এটি ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এর সদর দপ্তর স্পেনের মাদ্রিদ।

সংস্থাটির ২২ তম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয় চীনের চেংডু তে। এ সম্মেলনে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার সভাপতি নির্বাচিত হয়।


👉 Read More...👇
🡸 IAEA FAO 🡺

Add a Comment