Category: বাংলা

দ্বিজ বংশীদাস

দ্বিজ বংশীদাস (১৬শ-১৭শ শতক) মধ্যযুগের বাংলা মনসামঙ্গল কাব্যধারার অন্যতম কবি। তিনি কিশোরগঞ্জের পাতুয়ারী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা যাদবানন্দ ছিলেন একজন গায়েন এবং কন্যা চন্দ্রাবতী ছিলেন কবি। চন্দ্রাবতী রামায়ণ
Read More

ধর্মমঙ্গল কাব্য

ধর্মমঙ্গল মধ্যযুগীয় বাংলা সাহিত্যের মঙ্গলকাব্য ধারার তিনটি প্রধান শাখার অন্যতম (অপর শাখাদুটি হল মনসামঙ্গল ও চণ্ডীমঙ্গল)। এই কাব্য রচনার প্রধান উদ্দেশ্য দক্ষিণ-পশ্চিম বাংলার লৌকিক অনার্য দেবতা ধর্মঠাকুরের মাহাত্ম্য
Read More

মনসামঙ্গল কাব্য

মনসামঙ্গল কাব্যের চরিত্রঃ চাঁদ সওদাগর, বেহুলা, লখিন্দর। মনসামঙ্গল কাব্যের কবিগণ নারায়ণদেব( ‘সুকবি-বল্লভ’)। তিনি মনসামঙ্গল কাব্যের সর্বশ্রেষ্ঠ কবি কানা হরিদত্ত মনসামঙ্গল কাব্যের আদি কবি। বিপ্রদাস পিপলাই এর মনসাবিজয়- যেখানে
Read More

গঙ্গামঙ্গল কাব্য

কয়েকজন কবি গঙ্গামঙ্গল কাব্য রচনা করেন। এদের মধ্যে দ্বিজমাধব প্রাচীনতম। ধারনা করা হয় তিনি চণ্ডিমঙ্গলের দ্বিজমাধব। তিনি শী চৈতন্য মহাপ্রভুর ভক্ত ছিলেন। গঙ্গা নদীর স্বর্গ থেকে মর্তে ও
Read More

চণ্ডীমঙ্গল কাব্য

চণ্ডীমঙ্গল বা অভয়ামঙ্গল মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের মঙ্গলকাব্য ধারার অন্যতম প্রধান কাব্য। মঙ্গলকাব্য ধারার অন্য দুই উল্লেখযোগ্য কাব্য মনসামঙ্গল ও ধর্মমঙ্গল। জনশ্রুতি অনুসারে চণ্ডীমঙ্গল কাব্যের আদি-কবি মানিক দত্ত। এই
Read More

মঙ্গলকাব্য

বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগে বিশেষ এক শ্রেণীর ধর্মবিষয়ক আখ্যান কাব্য মঙ্গলকাব্য নামে পরিচিত। বলা হয়ে থাকে, যে কাব্যে দেবতার আরাধনা, মাহাত্ম্য-কীর্তন করা হয়, যে কাব্য শ্রবণেও মঙ্গল হয় এবং
Read More

দ্বিজ মাধব

দ্বিজ মাধব রচিত কাব্যের নাম সারদামঙ্গল বা সারদা চরিত। তিনি নদীয়া জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। কাজের জন্য চট্টগ্রামের আসেন। সেখানেই তিনি কাব্য রচনা করেন। কয়েকজন কবি গঙ্গামঙ্গল কাব্য রচনা
Read More

বাংলা সাহিত্যের চৈতন্য যুগ

শ্রী চৈতন্য যদিও কোনো সাহিত্য রচনা করেন নি, কিন্তু মধ্যযুগের সাহিত্য বিকাশে তাঁর ভূমিকা অপরিসীম। তাঁর নামে বাংলা সাহিত্যের একটি যুগের নাম করণ করা হয়েছে। ১২০১-১৩৫০ অন্ধকার যুগ
Read More

বাংলা সাহিত্যের অন্ধকার যুগ

বাংলা সাহিত্যের ১২০০-১৩৫০ খ্রি. পর্যন্ত সময়কে “অন্ধকার যুগ” বা “বন্ধ্যা যুগ” বলে কেউ কেউ মনে করেন। ড. হুমায়ুন আজাদ তাঁর “লাল নীল দীপাবলী” গ্রন্থে (পৃ. ১৭) লিখেছেন- “১২০০
Read More

চর্যাপদে নারীদের অবস্থান

চর্যাপদের যুগে নারীরা খুব স্বাধীন ছিলেন বলে জানা যায়। তারা স্বেচ্ছায় সঙ্গী ও পেশা নির্বাচনের অধিকার রাখতেন। কুক্করীপা গৃহবধূর ছল করা নিয়ে বলেছেন, “সে দিনের বেলায় কাকের ডাকে
Read More